Home » ডেলিভারি ও সাপ্লাই চেইন ম্যানেজমেন্ট যুগোপযোগী করতে কনভেন্স অ্যাপের জন্ম যেভাবে!

ডেলিভারি ও সাপ্লাই চেইন ম্যানেজমেন্ট যুগোপযোগী করতে কনভেন্স অ্যাপের জন্ম যেভাবে!

মনিকো টেকনোলোজিসের হাত ধরে বাংলাদেশে সর্বপ্রথম জিপিএস ট্র্যাকিং সার্ভিস ফাইন্ডারের জন্ম। কনভেন্স অ্যাপও মনিকো টেকনলজিস লিমিটেডের একটি স্টার্ট আপ। সাপ্লাই চেইন ম্যানেজমেন্ট এর কনভেন্স অ্যাপের জন্ম কীভাবে হলো? এই গল্পটা কনভেন্সের এর অগ্রজ ফাইন্ডার এর মধ্যে থেকেই শুরু।

শুরুর আগের গল্পঃ কনভেন্স অ্যাপের আইডিয়া

আজ থেকে বছর তিন আগের কথা। গাড়ির জন্য জিপিএস ট্র্যাকিং সার্ভিস দিয়ে ইতোমধ্যে ফাইন্ডার সফলতা অর্জন করেছে। ফাইন্ডার গ্রাহককে গাড়ি ট্র্যাক করার সব ধরণের সুযোগ সুবিধা দিয়ে থাকে। ফাইন্ডারের অ্যাপ দিয়ে একজন গাড়ির মালিক তাঁর গাড়িকে, যেকোনো সময়ে, যেকোনো জায়গা থেকে নজরদারিতে রাখতে পারেন। কিন্তু যারা গাড়ির জন্য ড্রাইভার রাখেন, তাদের ড্রাইভাররা গাড়ির মালিকের অনুমতি ছাড়া ফাইন্ডার অ্যাপ ব্যবহার করতে পারেন না। ফলে ড্রাইভারদের সাথে গাড়ির মালিকের মাঝে একটা কমিউনিকেশন গ্যাপ থেকেই যাচ্ছে। বিশেষ করে যেসব কর্পোরেট কোম্পানি ট্রান্সপোর্ট ম্যানেজমেন্ট এর জন্য ফাইন্ডার ব্যবহার করেন। কাজের সুবাদে অসংখ্য ড্রাইভারের সাথে একজন ট্রান্সপোর্ট ম্যানেজারের সারাদিন যোগাযোগ রাখতে হয়।

অপরদিকে ডাটা এনালাইসিস থেকে জানা গেল, ড্রাইভার যেহেতু অ্যাপ ব্যবহার করার সুযোগ পাচ্ছেনা না, তাই তাঁর মধ্যেও একটা অনিরাপদ এবং অবিশ্বস্ততা অনুভব হচ্ছে। তারাও যদি অ্যাপের মাধ্যমে ম্যাপে গাড়ির লোকেশন দেখতে পায়, তারাই গাড়ি সুরক্ষা নিশ্চিত করার একটা সুযোগ পাবে। অর্থাৎ ড্রাইভারদের জন্য একটা অ্যাপ তৈরি করতে পারলে মূলত গাড়ির মালিক এবং ড্রাইভার দুই পক্ষের জন্যই উপকার হবে।

ঠিক এই আইডিয়াটাকে পুঁজি করে মনিকো টেকনোলোজিসের সিওও, সাখাওয়াত সোবহান ভাবলেন, ড্রাইভার ব্যবহার করতে পারবে, এমন একটা অ্যাপ তৈরি করতে হবে। যাতে করে গাড়ির মালিক বা কোন কর্পোরেট ট্রান্সপোর্ট ম্যানেজার, ড্রাইভারদেরকে যেসব কাজ করতে দেন, সেসব কাজ সঠিক ভাবে সম্পন্ন করা, কাজ মনিটর ও কমিউনিকেশন যেন এক অ্যাপ দিয়েই করা যায়। এতে করে বড় বড় অনেক সমস্যার সমাধান হবে খুব সহজেই।

আইডিয়ার প্রয়োগের ক্ষেত্র ও বাস্তব চিত্র

একটি এগ্রো ফার্মের ট্রান্সপোর্ট ম্যানেজার কথা ধরা যাক। তার অধীনে থাকা ২০ টি ট্রাক-পিকআপ প্রতিদিন চলাচল করে। ফার্মের পণ্য পরিবহণে এইসব ট্রাক ও যানবাহন ব্যবহার করা হয়। ট্রাক-পিকআপগুলোকে মনিটর করার জন্য ফাইন্ডার জিপিএস ট্র্যাকিং সার্ভিস রয়েছে। কিন্তু সারাদিন ২০ টি গাড়ির ২০ জন ড্রাইভারের সাথে কমিউনিকেশন রক্ষা করা কিন্তু চাট্টেখানি কথা না। সেই সকাল থেকে রাত — কাজ বুঝিয়ে দেয়া, রুট বুঝিয়ে দেয়া, জায়গা চিনিয়ে দেয়া, একের পর এক ফোন করে ড্রাইভারের সাথে কথা বলা, আর চলার পথে নতুন কোন কাজের নির্দেশনা থাকলে সেগুলো আবার ফোন করে বুঝিয়ে দেয়া। এক কথায় বলতে গেলে, কখনো কখনো হ-য-ব-র-ল অবস্থা হয়ে যায়।

এখন ড্রাইভারের হাতে যদি একটা অ্যাপ তুলে দেয়া যায়। তাহলে এই হ-য-ব-র-ল অবস্থার নিরসন করা সম্ভব সহজেই!

কীভাবে?

ধরাযাক ড্রাইভারের কাছে এমন একটা অ্যাপ আছে, যেখানে ড্রাইভারের সাথে যোগাযোগের সব ধরণের ফিচার রয়েছে। ড্রাইভার কোন স্থান থেকে যাত্রা শুরু করে কোন স্থানে যাবে, তাঁর কাজের বিবরণ, কোন সময়ে কোন কাজ করতে হবে, পথে কোথায় কোথায় থেমে পণ্য পিক আপ করতে হবে, ডেলিভারি করতে হবে সবকিছুই থাকবে এই ড্রাইভার অ্যাপ এর মধ্যে। যেহেতু ফাইন্ডার জিপিএস সার্ভিস সিস্টেমের সাথে অ্যাপটি যুক্ত থাকবে, ট্রান্সপোর্ট ম্যানেজার ফাইন্ডার অ্যাপ এর মাধ্যমে ড্রাইভারের অ্যাপে একজন ড্রাইভারের সমস্ত কাজ তুলে দিলে, ড্রাইভারকে তো ম্যাপের মধ্যে দেখতে পাবেনই, ড্রাইভারের কর্মপদ্ধতিও ট্র্যাক করা যাবে। ড্রাইভারও তাকে দেয়া কাজ অ্যাপেই দেখতে পাবেন। দুই পক্ষের যোগাযোগটাও হবে অ্যাপ দিয়েই, কমেন্টে কমেন্টে! একের পর এক কাজ শুরু করার আর শেষ করার নোটিফিকেশন সিস্টেম থাকবে অ্যাপে। ড্রাইভার কাজ শেষ করে, অ্যাপে ইনপুট দিলেই ম্যানেজারের কাছে নোটিফিকেশন চলে যাবে । গাড়ির নিরাপত্তার সাথে যোগ হবে পণ্য এবং কাজের নিরাপত্তাও!

কনভেন্স অ্যাপ এর মূল আইডিয়াটা এভাবেই আসে। আইডিয়ার বীজ ঠিক এভাবে বপন হলেও, বীজটাকে নিয়মিত পানি দিয়ে আলো বাতাস দিয়ে আরও বড় করা হয়েছে। একটা নির্দিষ্ট জায়গা থেকে ভাবতে শুরু করলেও, এই আইডিয়াটা আরও বড় পরিসরে ব্যবহার করার ব্যাপক সম্ভাবনা দেখা গেল।

ডেলিভারি ও সাপ্লাই চেইন ম্যানেজমেন্টে কনভেন্স অ্যাপ

দেশের পার্সেল এবং কুরিয়ার সার্ভিসগুলোর জন্য এই অ্যাপ আরও ডিটেইল এবং সুন্দর ভাবে ডেভেলপ করা যায়। কারণ কুরিয়ার, ডেলিভারি বা পার্সেল সার্ভিস কোম্পানিগুলোকে প্রতিদিন বিপুল পরিমাণ ট্রান্সপোর্ট ম্যানেজ করতে হয়, হাজারো ড্রাইভার কুরিয়ার, পার্সেল, ডেলিভারি নিয়ে ছুটতে হয় এক স্থান থেকে আরেক স্থানে। কাস্টমারের কথা ভুলে গেলেও চলবে না, কারণ কাস্টমার যদি সময় মতো কুরিয়ার, পার্সেল বা কাঙ্ক্ষিত ডেলিভারি না পায়; তাহলে বিরক্ত হয় এবং কিছুটা ভয়ে থাকে। তাই কুরিয়ার, পার্সেল, ডেলিভারি সার্ভিস প্রদানকারীকে প্রতিমুহূর্তেই সময়ের থেকে এগিয়ে থাকতে হবে। অর্থাৎ আইডিয়াতে ট্রান্সপোর্ট ম্যানেজমেন্টের সাথে যুক্ত হলো ডেলিভারি পারসন, ডেলিভারি সিস্টেম এবং জব বা টাস্ক ম্যানেজমেন্ট এবং এন্ড লেভেল কাস্টমার।

আইডিয়া ডেভেলপমেন্টের থট প্রসেস কিন্তু এই পর্যন্ত এসেও থেমে যায়নি। যেহেতু পুরো পরিবহণ ব্যবাস্থা সহ, টাস্ক ম্যানেজমেন্টর জন্য রিয়েল টাইম কমিউনিকেশন করার ব্যাপারটা চলে এলো, তাহলে তো এই টাস্ক ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমটাকেই আমূলে পরিবর্তন করা সম্ভব। জব অপারেশনকে সহজ করতেও কনভেন্স অ্যাপ কার্যকরী ভূমিকা পালন করতে পারে। কেননা একজন অপারেশন হেডও কনভেন্স অ্যাপের মাধ্যমে তার এবং অধীনস্থ টিম মেম্বারদের কাজকে আরও সহজ এবং কার্যকরী উপায়ে ম্যানেজ করতে পারবেন। সুতরাং, ট্রান্সপোর্টেশন, ড্রাইভার, অপারেটর, লজিস্টিক ম্যানেজমেন্ট, ডেলিভারি ম্যানেজমেন্ট, জব বা টাস্ক ম্যানেজমেন্ট- এক কথায় সাপ্লাই চেইন ম্যানেজমেন্টের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত পুরো ব্যাপারটাই এক অ্যাপের মধ্যে নিয়ে আসা সম্ভব। এজন্যই কনভেন্স অ্যাপের মূল স্লোগান —

Supply Chain Made Easy!

এভাইবেই ফাইন্ডার জিপিএস সার্ভিস থেকে জন্ম নেয়া কনভেন্স অ্যাপ-এর ছোট্ট আইডিয়াটা একটু একটু করে আরও বড় আইডিয়াতে রূপান্তরিত হয়েছে। এরপর ২০১৯ সালে কনভেন্স অ্যাপ এর ফিজিক্যাল অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট শুরু। লোকেশন বেজ জিপিএস ট্র্যাকিং, রিয়েল টাইম অনলাইন মনিটরিং এবং SaaS কমিউনিকেশন একত্রিত করে শুরু হল অ্যাপ তৈরির কাজ। ১৯ এর প্রথমার্ধে প্রাথমিকভাবে কনভেন্স অ্যাপ এর জন্ম হলো।

অ্যাপ এর কার্যকারিতা পরীক্ষা

অ্যাপ তো তৈরি হলো। এবার অ্যাপের কার্যকারিতা পরীক্ষার পালা। প্রথমে, ফাইন্ডার জিপিএস ট্র্যাকিং সার্ভিস ব্যবহার করে এমন দুটো কর্পোরেট কোম্পানি, তাদের ট্রান্সপোর্ট ডিপার্টমেন্টে ড্রাইভারদের জন্য কনভেন্স অ্যাপ ব্যবহার করার জন্য চুক্তিবদ্ধ হয়। এবং তারা কনভেন্স অ্যাপ ব্যবহার করে অভাবনীয় উপকার পেয়েছেন। যেকোনো সময়ে এবং যেকোনো পরিস্থিতিতে কাজ সম্পাদনের ক্ষেত্রে কনভেন্স অ্যাপ এর সাফল্য এভাবেই শুরু। এবং কনভেন্স অ্যাপ যে আসলেই কাজের অ্যাপ সেই বিশ্বাসও আরও মজবুত হয়েছে।

ট্রান্সপোর্ট ও ডেলিভারি ম্যানেজমেন্টে কনভেন্স এর কার্যকারিতা

কনভেন্স অ্যাপ এর প্রয়োগের ফলে যে দুটো বিষয় ভ্যালিডিটি পেয়েছেঃ

১. এর মাধ্যমে ট্রান্সপোর্ট সিস্টেমকে আরও গুছিয়ে এনে সহজে অপারেট করা সম্ভব।

২. যেহেতু কর্পোরেট ট্রান্সপোর্ট পণ্য পরিবহণ এবং ডেলিভারির কাজ করে, অর্থাৎ কনভেন্স অ্যাপ ডেলিভারি সেক্টর- কুরিয়ার পারসেল, অনলাইন ডেলিভারি, ই-কমার্স ডেলিভারিতেও কাজ করতে সক্ষম।

সাপ্লাই চেইন ম্যানেজমেন্ট ও কনভেন্স এর কার্যকারিতা

রিয়েল টাইম টাস্ক ম্যানেজমেন্টে কনভেন্স অ্যাপ আসলেই কাজ করে কিনা সেজন্য আবারো বেছে নেয়া হলো ফাইন্ডারের অপারেশন টিমকে। অপারেশন টিমে কনভেন্স অ্যাপ এর বাস্তবিক প্রয়োগ করার পর সেখানেও সাফল্যের দেখা পাওয়া গেছে। কনভেন্স অ্যাপ এর সুবাদে ফাইন্ডারের অপারেশন আরও স্মুথ হয়েছে। ফলে বাস্তব চিত্র থেকেই দেখা যাচ্ছে, কনভেন্স অ্যাপ পুরো সাপ্লাইচেইন ম্যানেজমেন্টকে হাতের মুঠোয় নিয়ে আসার ক্ষেত্রে অনেকটাই সফল। যতই দিন যাচ্ছে, কনভেন্স অ্যাপ আও উন্নত হচ্ছে। সাপ্লাই চেইন, লজিস্টিকস, ট্রান্সপোর্ট ম্যানেজমেন্ট, ডেলিভারি সিস্টেম ম্যানেজমেন্ট, ও টাস্ক ম্যানেজমেন্টের খুঁটিনাটি নিয়ে আরও গবেষণা চলছে। যেন কনভেন্স অ্যাপ দিয়ে এই সেক্টরে একটা জিডিটাল বিপ্লব নিয়ে আসা যায়।

ফাইন্ডারের অপারেশন টিমে কনভেন্স অ্যাপ এর সাফল্যের গল্প পড়তে পাবেন আমাদের পরের পোষ্টে

এছাড়াও, ই-কমার্স, অনলাইন বিজনেস, এফএমসিজিতে কনভেন্স অ্যাপ কীভাবে সফলতা এনে দিতে পারে, জানার জন্য চোখ রাখুন আমাদের ফেসবুক পেইজে এবং ব্লগে। কনভেন্স অ্যাপ সম্পর্কে আরো জানতে কল করতে পারেন: 01811447936 নাম্বারে। প্লে স্টোর থেকে অ্যাপটি ডাউনলোডও করতে পারেন। ডাউনলোড করলেই ১ মাসের ফ্রি সাবস্ক্রিপশন!

কনভেন্স অ্যাপটি ডাউনলোড করতে ক্লিক করুন এখানে